নীতিনির্ধারকেরা চাইলে যেকোন সময়ই দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা সম্ভব, গয়েশ্¦র

0
314

প্রায় দেড় বছর ধরে দুর্নীতির মামলায় কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে প্রতীকী অনশন-মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি। এসব কর্মসূচিতে কাজ না হওয়ায় আন্দোলনের ধরণ বদলানোর চিন্তা করছে বিএনপি।

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু জানান, বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্য কঠোর কর্মসূচি দেয়া প্রয়োজন। প্রয়োজনে হরতাল, রাজপথ, রেলপথ অবরোধ করতে হবে। যে ধরণের কর্মসূচি দিলে সরকারের রাষ্ট্র পরিচালনায় অচলায়নের সৃষ্টি হয়, সেই ধরণের কর্মসূচি দিতে হবে।

তবে তা কবে এ প্রশ্নের জবাবে সময় মতো কঠোর কর্মসূচি দৃশ্যমান হবে বলে জানান নেতারা। বিএনপি’র ভাইস-চেয়ারম্যান আহমেদ আজম খান বলেন, তৃণমূল যেমন চূড়ান্ত আন্দোলন চাচ্ছে, আমরাও তাদেরকে সেভাবে প্রস্তুত করছি। সেটা দিনক্ষণ মেনে আসবে না, যেকোন সময় চূড়ান্ত আন্দোলনের বাঁশি বাজতে পারে। কারণ এর কোন বিকল্প নেই।
বিএনপি’র ভাইস-চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদ বলেন, আমরা এখন পর্যন্ত এমন কোন আন্দোলন রাজপথে গড়ে তুলতে পারিনি, যাতে সরকার তাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়। দলের এখন থেকে প্রস্তুতি নেয়া উচিত। কমিটিগুলোকে নতুন করে সাজানো উচিত, যাতে করে আগামী শীত মৌসুমে আমরা কার্যকর আন্দোলন গড়ে তুলতে পারি।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের মতে, নীতিনির্ধারকেরা চাইলে যেকোন সময়ই দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা সম্ভব। আমরা যারা আন্দোলন পরিচালনা করবো, নেতাকর্মীদের উৎসাহ দেব, তাদের নিজেদেরকে আগে সেভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে যে, আমি এটা করতে চাই। আমাদের ঘাটতিটা কোথায়? সেটা সবার সঙ্গে আলোচনা করে বের করতে হবে। আমি এখন ঘাটতির কথা বললে আমার সহকর্মীরা মনে কষ্ট পাবে।

Print Friendly, PDF & Email